প্রবাসীকে তুলে নিয়ে ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার দেখানোর অভিযোগ

ইয়াবা

ক্রাইম নিউজ সার্ভিস্‌ ॥ চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা থেকে সৈয়দ মোহাম্মদ নাদিম উল্লাহ (৩৬) নামে এক অস্ট্রেলিয়ান নাগরিককে তুলে নিয়ে গাজীপুরে ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। গত শনিবার চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে এই অভিযোগ করেন নাদিম উল্লাহর মা সৈয়দা নাহিদ সুলতানা। তিনি বলেন, নাদিমকে আটকের পর গাজীপুর ডিবি পুলিশের এসআই পরিচয় দিয়ে এক ব্যক্তি ২ লাখ টাকা দাবি করেন। এই টাকা না দেওয়ার কারণে তাঁর ছেলেকে ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

অভিযোগের ব্যাপারে জানতে চাইলে গাজীপুর জেলার পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদ জানান, ওই ব্যক্তিকে ২ হাজার ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার করা হয়। তাঁর বিরুদ্ধে চোরাচালানে জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে নাহিদ সুলতানা বলেন, তাঁদের বাড়ি চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার কালীদাসপুর ইউনিয়নের পাইকপাড়া গ্রামে। তাঁর স্বামী বরকত উল্লাহ বাংলাদেশ বেতারের সাবেক প্রকৌশলী ও তিনি অনুষ্ঠান ঘোষক ছিলেন। ঢাকার মিরপুরের টোলারবাগে তাঁরা বসবাস করেন। তিনি বলেন, নাদিম প্রায় ১৪ বছর অস্ট্রেলিয়ার বাসিন্দা। সেখানে তাঁর স্ত্রী (বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত অস্ট্রেলিয়ান নাগরিক) ও দুই সন্তান রয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে নাহিদ সুলতানা ছেলেকে তুলে নিয়ে যাওয়া ও পরে এ নিয়ে গাজীপুর ডিবি পুলিশের ভূমিকার কথা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, ২৫ অক্টোবর বুধবার আলমডাঙ্গা লাল ব্রিজ-সংলগ্ন সাদা ব্রিজের ওপর থেকে নাদিমকে গাজীপুরের ডিবি পুলিশ পরিচয়ে মাইক্রোবাসযোগে তুলে নিয়ে যায়। এর দুই ঘণ্টা পর খোরশেদ নামের এক ব্যক্তি নিজেকে গাজীপুর ডিবি পুলিশের এসআই পরিচয় দিয়ে তাঁর কাছে বলেন, ২ লাখ টাকা দিলে নাদিমকে ছেড়ে দেওয়া হবে।

নাহিদ সুলতানা দাবি করেন, নাদিমকে আলমডাঙ্গা পৌর শহরের পাশ থেকে তুলে নেওয়া হলেও গাজীপুর ডিবি পুলিশ কালিয়াকৈর থেকে আটকের মিথ্যা নাটক সাজায়। দাবিকৃত ২ লাখ টাকা না দেওয়ায় নাদিমকে ইয়াবা মামলায় জেলে দেওয়া হয়। সামাজিকভাবে হেনস্তা করতেই এসব করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

এই সংক্রান্ত আরো নিউজ

Leave a Comment