স্কুলছাত্রকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে পিটিয়ে হত্যা

ক্রাইম নিউজ সার্ভিসঃ গাজীপুরে তারেক রহমান (১৬) নামের এক স্কুলছাত্রকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। সিটি করপোরেশনের কাশিমপুর হাতিমারা পশ্চিমপাড়া এলাকায় বুধবার রাতে এ হত্যাকাণ্ড ঘটে। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

তারেক হাতিমারা এলাকার বাদশা মিয়ার ছেলে ও হাতিমারা স্কুল অ্যান্ড কলেজের দশম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

পুলিশ ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, হাতিমারা এলাকার হামিদুল ইসলামের একটি মেয়ের সঙ্গে তারেক রহমানের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। এ নিয়ে এক মাস ধরে দুই পরিবারের মধ্যে ঝামেলা চলছিল। কয়েক দিন ধরে স্থানীয়ভাবে দুই পরিবারের মধ্যে মীমাংসার চেষ্টা চলছিল। এর মধ্যেই বুধবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে হামিদুল ইসলাম লোক দিয়ে তারেককে বাড়িতে ডেকে পাঠান। তারেক হামিদুলের বাড়িতে যায়। এ সময় হামিদুল মেয়ে ও স্ত্রীকে পাশের একটি কক্ষে আটকে রাখেন। এরপর হামিদুল ও তাঁর বন্ধু মমিনুল ইসলামসহ তিন-চারজন লাঠিসোঁটা দিয়ে তারেককে পেটাতে থাকেন। একপর্যায়ে সংজ্ঞা হারিয়ে ফেললে তারেকের মুখে ও শরীরে বিষ ছিটিয়ে দেন তাঁরা। এরপর হাতিমারা মসজিদের পাশের রাস্তায় তাকে ফেলে দেওয়া হয়।

খবর পেয়ে স্বজনেরা ভোর পাঁচটার দিকে তারেককে উদ্ধার করে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় তারেকের মা হালিমা বেগম জয়দেবপুর থানায় মামলা করেছেন। পুলিশ অভিযান চালিয়ে হাতিমারা এলাকার মমিনুল ইসলাম (৩২) ও মাদারীপুরের শিবচর থানার মুন্সি কাজীপুর গ্রামের ইব্রাহীমকে (২৪) গ্রেপ্তার করেছে।

হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক আবদুস সালাম সরকার বলেন, তারেককে হাসপাতালে আনার অনেক আগেই তার মৃত্যু হয়। তার শরীরে আঘাতের অনেক চিহ্ন ছিল।

জয়দেবপুর থানাধীন চক্রবর্তী পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) জাকির হোসেন বলেন, হামিদুল ইসলাম পলাতক আছেন। তাঁকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

Please follow and like us:
0

Related posts

Leave a Comment