শোলাকিয়া ঈদগাহ ময়দানে বিস্ফোরণ ।। ২ পুলিশসহ নিহত ৪

শোলাকিয়ায় সন্ত্রাসী হামলা

ক্রাইম নিউজ সার্ভিস: কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়া ঈদগাহসংলগ্ন আজিমুদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে টহল পুলিশের ওপর বোমা হামলা চালিয়েছে একদল দুর্বৃত্ত। এতে হামলায় দুই পুলিশ সদস্যসহ চারজন নিহত এবং কমপক্ষে ১২ জন আহত হয়েছেন। এছাড়া ঘটনাস্থলে ঝর্ণা রানি ভৌমিক নামে এক নারী নিহত হয়েছেন। প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, তিনি গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হন। নিহত আরেকজন হামলাকারী বলে জানিয়েছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। হামলার পর পুলিশসহ ১২ জনকে কিশোরগঞ্জ জেলা হাসপাতালে নেওয়া হলে জহুরুল হক (৩০) নামে এক পুলিশ কনস্টেবলকে মৃত ঘোষণা করা হয় বলে ডেপুটি সিভিল সার্জন হাবিবুর রহমান জানান।

আরেকজন হামলাকারী
আরেকজন হামলাকারী

কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সৈয়দ আবু সায়েম দুই পুলিশ সদস্যের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, জহিরুলের মৃত্যু হয় ঘটনাস্থলেই। আর মাথায় গুলিবিদ্ধ আনসার উল্লাহর মৃত্যু হয় বেলা ১২টার দিকে ময়মনসিংহ সেনানিবাসের সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে।

আহত পুলিশ সদস্যদের অবস্থা গুরুতর। তাদের কিশোরগঞ্জ জেলা হাসপাতালে ও ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

শোলাকিয়া ঈদগাহ

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সকাল ১০টায় শোলাকিয়ায় ঈদ জামাতের আগে আজিমুদ্দিন স্কুলের পাশে টহল দিচ্ছিল একদল পুলিশ। এ সময় অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা বোমা মেরে পালিয়ে যায়। দেশের সর্ববৃহৎ এই ইদ্গাহ ময়দানে প্রথম ঈদের জামাত উপলক্ষে যখন হেলিকপ্টারে করে ইমাম সাহেবকে নামিয়ে দেয়া হয়, তার পরপরই আরেকটি হেলিকপ্টার নামে ওই ময়াদানের পাশে এবং এরপরই ওই হামলার ঘটনা ঘটে। এতে আইন-শৃঙ্খলার দায়িত্বে থাকা কয়েকজন পুলিশ সদস্যকে কুপিয়েছে হামলাকারীরা।

বোমা হামলার পর হামলাকারীদের সঙ্গে পুলিশের গোলাগুলি শুরু হয়ে যায় বলে একজন প্রত্যক্ষদর্শী জানান। পরে বিজিবি সদস্যরাও সেখানে যান।

শোলাকিয়া ঈদগাহ

শোলাকিয়া মাঠে উপস্থিত পুলিশ সুপার আনোয়ার হোসেন খানজানান, হামলাস্থল থেকে চাপাতি ও বোমাসদৃশ বিস্ফোরক উদ্ধার করা হয়েছে। এ ছাড়া গুলিসহ একটি রিভলবারও পাওয়া গেছে।

ডেপুটি সিভিল সার্জন হাবিবুর রহমান জানান, আহতদের মধ্যে ছয় পুলিশ সদস্যকে ময়মনসিংহ সেনানিবাসের সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) পাঠানো হয়। পরে সেখানে থেকে আহতদের নিয়ে বেলা সোয়া ১২টার দিকে একটি হেলিকপ্টার ঢাকার উদ্দেশে রওনা হয়। আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন- কনস্টেবল জুয়েল, মশিউর, প্রশান্ত, রফিকুল ও তুষার এবং সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) নয়ন।

এছাড়া পুলিশ জানিয়েছে, আহত অবস্থায় ঘটনাস্থল আবু মুকাদ্দিন, মামুন ও আহসানুল্লাহ নামে তিনজনকে আটক করা হয়েছে। তবে নিহত সন্দেহভাজনের পরিচয় নিশ্চিত করতে পারেননি তারা।

গত ১ জুলাই ঢাকার গুলশানে বাংলাদেশের ইতিহাসে নজিরবিহীন জঙ্গি হামলার ঘটনায় ২০ জন নিহতের পর এবার দেশের প্রধান সব ঈদ জামাতেই বাড়তি নিরাপত্তার ব্যবস্থ করা হয়। শোলাকিয়াতেও ওয়াচ টাওয়ার থেকে এবং ক্লোজড সার্কিট ক্যামেরার সাহায্যে প্রতি মুহূর্তের পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়।

ঈদের সকাল থেকে ঈদগাহ মাঠ ও আশপাশের এলাকায় সহস্রাধিক পুলিশ সদস্যের পাশাপাশি বিপুল সংখ্যক র‌্যাব ও আর্মড পুলিশ মোতায়েন ছিলেন বলে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে।

 

এই সংক্রান্ত আরো নিউজ

Leave a Comment