ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দিয়ে লেখালেখি করলে প্রচলিত আইনে ব্যবস্থা

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল

ক্রাইম নিউজ সার্ভিস: ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দিয়ে কেউ লেখালেখি করলে তাদের বিরুদ্ধে দেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।  রাজধানীর গেণ্ডারিয়ার মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের (ডিএনসি) ঢাকা আঞ্চলিক কার্যালয় উদ্বোধন শেষে তিনি এ কথা বলেন।

ব্লগার নিলাদ্রী চট্টোপাধ্যায় ওরফে নিলয় হত্যার ব্যাপারে পুলিশের কাছে প্রমাণ ও ক্লু রয়েছে বলেও তিনি জানান।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সভায় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ধর্ম নিয়ে কটূক্তিকারীদের ব্যাপারে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। যার যার ধর্ম সে পালন করবে। কিন্তু অন্য ধর্মকে নিয়ে কটূক্তি করার এখতিয়ার কাউকে দেয়া হয়নি। ধর্ম অবমাননাকারীদের বিরুদ্ধে দেশের প্রচলিত আইনে ব্যবস্থা নেয়া হবে। পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থা মিলে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

নিলয় হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় মামলার অগ্রগতি নিয়ে তিনি বলেন, আমাদের কাছে যথেষ্ট প্রমাণ ও ক্লু রয়েছে। এসব তথ্যপ্রমাণ যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে। আমরা অনুমান নির্ভর কিছু করতে চাই না। তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে আমরা ব্যবস্থা নেব। রাজীব হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আদালতে তাদের বিচারকাজ চলছে। অভিজিৎ হত্যার খুনিদের ধরতে এফবিআই কাজ করছে। ওয়াশিকুর হত্যায় জড়িত দু’জনকে ধরে আইনের আওতায় আনা হয়েছে। নিলয় হত্যায় জড়িতদেরও শিগগিরই পাকড়াও করা হবে।

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণের বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে সারা দেশে মাদক নিয়ন্ত্রণের বিষয়ে ব্যাপক অভিযান চালানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। খুলনা ও রংপুর বিভাগে দুটি আঞ্চলিক অফিস করা হবে। এছাড়া প্রত্যেক জেলায় একটি করে বড় আকারে অফিস করার চিন্তা করা হচ্ছে। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের সীমিত আকারে অস্ত্র সরবরাহ করা হবে। এর আগে তাদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ঢাকা-৬ আসনের সংসদ সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ বলেন, পুরান ঢাকা থেকে সব ধরনের মাদক বিস্তার রোধে কাজ করতে হবে। এজন্য শুধু পুলিশ নয়, সব শ্রেণী-পেশার মানুষকে এগিয়ে আসতে হবে। অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব আবু হেনা মোহাম্মদ রহমতুল মনির, ডিএনসি’র ডিজি বজলুর রহমান, অতিরিক্ত মহাপরিচালক (এডিজি) আমির হোসেন, পুলিশের ওয়ারী বিভাগের ডিসি সৈয়দ নুরুল ইসলামসহ ডিএনসির কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

এই সংক্রান্ত আরো নিউজ

Leave a Comment